৩ মাসের শিশু পুত্রকে আটকে মাকে দিয়ে দেহ ব্যবসা

৩ মাসের শিশু পুত্রকে আটকে মাকে দিয়ে দেহ ব্যবসা
রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া হতে ৩ মাসের শিশুপুত্র সহ পাচার হওয়া গৃহবধুকে (২১) বৃহস্পতিবার দিনগত গভীর রাতে ময়মনসিংহ যৌনপল্লী হতে উদ্ধার করেছে গোয়ালন্দ ঘাট থানা পুলিশ। পাচারকারীর একটি চক্র গৃহবধুকে ওই পল্লীর আশা বাড়ীওয়ালীর কাছে বিক্রি করে দেয়। সে শিশুটিকে মায়ের কাছ থেকে অন্যত্র আটকে রেখে জোরপুর্বক ওই গৃহবধুকে দিয়ে দেহ ব্যবসা করাতো।
পুলিশ ওই বাড়ীওয়ালীকে গ্রেফতার করেছে। এ ঘটনায় গোয়ালন্দ ঘাট থানায় আশা বাড়ীওয়ালীকে প্রধান এবং অজ্ঞাত আরো কয়েকজনকে আসামী করে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় মানব পাচার প্রতিরোধ ও দমন আইনে মামলা করা হয়েছে। আসামীকে রাজবাড়ীর আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে এবং উদ্ধার হওয়া মা ও শিশু সন্তানকে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে গ্রেফতারকৃত আশা বাড়ীওয়ালী শরিয়তপুর জেলার ভেদরগঞ্জ উপজেলার নারায়ণপুর গ্রামের সালাম বেপারীর মেয়ে। তার স্বামী ওই গ্রামেরই মৃত জাহাঙ্গীর আলম।
শনিবার দুুপুরে রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান, পিপিএম  (বার) তার কাযার্লয়ের কনফারেন্স রুমে এ বিষয়ে প্রেস ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে ঘটনার বিস্তারিত তুলে ধরেন। পুলিশ সুপার জানান, গত ১৩ জুলাই ওই গৃহবধু সাংসারিক অশান্তির দরুন কাজের উদ্যেশ্যে ঢাকার যাওয়ার জন্য স্বামীর বাড়ী থেকে বের হন। এরপর পাটুরিয়া ঘাটে আসার পর তিনি পাচারকারী চক্রের দুই পুরুষ সদস্যের খপ্পরে পড়েন। তারা গৃহবধুুর সাথে বোন পাতিয়ে তাকে ঢাকায় ভাল চাকরী দেয়ার কথা বলে সাভার হেমায়েতপুরে নিয়ে যায়। পরে সেখান থেকে ময়মনসিংহ যৌনপল্লীতে নিয়ে তাকে আশা বাড়ীওয়ালীর কাছে বিক্রি করে দেয় বাড়ীওয়ালী গৃহবধুর সাথে থাকা শিশুপুত্রকে জোর করে তার মায়ের থেকে বিচ্ছিন্ন করে একটি বস্তিতে নিয়ে রাখে। সেই সাথে জোর করে ও নানা ভয়ভীতি দেখিয়ে ওই গৃহবধুকে দিয়ে জোড় করে যৌন ব্যবসা করাতে থাকে।
এ দিকে কয়েকদিন আগে ওই গৃহবধুর কাছে খদ্দের হিসেবে যাওয়া এক যুবকের কাছে আকুতি জানিয়ে তার দুর্দশার কথা এবং তার নাম ঠিকানা জানালে ওই যুবক ময়মনসিংহের একটি ফেসবুক গ্রুপে বিষয়টি তুলে  ধরে এবং তার উদ্ধারের বিষয়ে সহযোগীতা কামনা করেন। গোয়ালন্দ ঘাট  থানার ওসি আশিকুর রহমান দীর্ঘদিন ময়মনসিংহে চাকুরী করার সুবাদে তার পূর্ব পরিচিত ওই গ্রুপের এক সদস্য বিষয়টি গত বৃহস্পতিবারতাকে অবগত করেন। এরপর ওসি আশিকুর রহমান বৃহস্পতিবার দুপুরে গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি (তদন্ত) মোহাম্মাদ আব্দুল্লাহ আল তায়াবীরের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ময়মনসিংহে পাঠান। তারা ময়মনসিংহের যৌনপল্লীতে অভিযান চালিয়ে গৃহবধুকে উদ্ধার ও বাড়ীওয়ালী আশাকে আটক করে। এরপর বাড়ীওয়ালীর দেয়া তথ্যানুযায়ী ময়মনসিংহের একটি বস্তি থেকে গৃহবধুর শিশুপুত্রকে উদ্ধার করে শুক্রবার ভোরে গোয়ালন্দ থানায় ফিরে আসেন।
প্রেস কনফারেন্সে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন রাজবাড়ীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সালাহ উদ্দিন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) ফজলুল করিম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) শেখ শরিফ উজ জামান, সহকারী পুলিশ সুপার (পাংশা সার্কেল) লাবিব আব্দুল্লাহ, ডিআইও-১ সাইদুর রহমান, গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি আশিকুর রহমান, ওসি (তদন্ত) মোহাম্মাদ আব্দুল্লাহ আল তায়াবীর প্রমূখ। প্রেস কনফারেন্সে জেলা ও গোয়ালন্দ উপজেলায় কর্মরত সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।
 Source:: https://www.dailyvorerpata.com/details.php?id=44216
https://youtu.be/bZBlvCH9_F0
See also  গোয়ালন্দঘাট পতিতালয়ের মেইন গেট (Goalanda Potitaloy main Gate) আসবেন কিভাবে ? দৌলতদিয়া যৌনপল্লী