বানর-কুকুরের মধ্যে লড়াই “২৫০ কুকুর নিহত”

বানর-কুকুরের মধ্যে লড়াই “২৫০ কুকুর নিহত”
এক এক করে কুকুর ছানা হরণ করে খুন করছে বানরা মহারাষ্ট্রের বিড জেলায় একদল কুকুরের সঙ্গে বানর বাহিনীর যুদ্ধ চলছে। গ্যাং-ওয়ার দুই দলের মধ্যে। মাজলগাঁওয়ের বানরের দল গত তিন মাসে প্রায় ২৫০ কুকুরছানাকে হত্যা করেছে। বানর মাটিতে কুকুর তাড়া করছে, কিন্তু বানরের সঙ্গে লড়াইয়ে পেরে উঠছে না। এক এক করে কুকুর ছানা হরণ করে নিয়ে যাচ্ছে বানররা। আর তারপর তাদের উচ্চতা থেকে মাটিতে ফেলে হত্যা করছে।
বানর ও কুকুরের মধ্যে ‘গ্যাং ওয়ার’। একদল কুকুর বনাম একদল বানর। মহারাষ্ট্রের বিড জেলায় রাস্তায় বাধল সাংঘাতিক লড়াই। তিনমাস ধরে চলছে এই যুদ্ধ। যার ফলে ২৫০ মৃত্যুর ঘটনা ঘটল। এখনও সেই লড়াই চলছে। কিন্তু কেন ঘটল এই গ্যাং-ওয়ার। কেনই বা প্রতিশোধের নেশায় একের পর এক খুনের ঘটনা?
একটা বানর ছানার প্রাণের বদলা ২৫০ কুকুরছানা খুন স্থানীয়রা জানিয়েছেন, এটা একটা প্রতিহিংসার ঘটনা। প্রতিশোধের নেশায় বানরারা এক এক করে কুকুরছানাদের হরণ করে নিয়ে গিয়ে হত্যা করছে। এই ঘটনার সূত্রপাল তিনমাস আগে। এক দল রাস্তার কুকুর মাস তিনেক আগে এলাকার একটি শিশু বানরকে মেরে ফেলেছিল। তারপর বানর বাহিনী তার প্রতিশোধ নিচ্ছে। একটা বানর ছানার প্রাণের বদলা ২৫০ কুকুরছানাকে তুলে নিয়ে গিয়ে গাছ বা উঁচু বাড়ির উপর থেকে ফেলে খুন করছে।
একটি ‘বানরের দল’ গ্রামে ঢুকে কুকুরের বাচ্চাদের আক্রমণ করছে একটি ‘বানরের দল’ গ্রামে ঢুকে কুকুরের বাচ্চাদের আক্রমণ করছে মহারাষ্ট্রের মাজলগাঁওয়ের লাভুল নামে একটি গ্রাম রয়েছে। ওই গ্রামের জনসংখ্যা প্রায় ৫ হাজার। তবে এই গ্রামে এখন একটি কুকুরছানাও অবশিষ্ট নেই। লাভুলে বানরের তাণ্ডবে গ্রামবাসীরাও আতঙ্কিত। তাঁরা জানান, একটি ‘বানরের দল’ গ্রামে ঢুকে কুকুরের বাচ্চাদের আক্রমণ করছে। তারপর তাদের এক এক করে তুলে নিয়ে গিয়ে খুন করছে। স্কুলগামী শিশুদেরও টার্গেট করছে প্রতিহিংসাপয়ারণ বানরের দল স্কুলগামী শিশুদেরও টার্গেট করছে প্রতিহিংসাপয়ারণ বানরের দল গ্রামবাসীরা একটি আহত কুকুর ছানাকে বাঁচানোর চেষ্টা করছিল। কিন্তু তা দেখে গ্রামবাসীদের উপরই চড়াও হয় একদল বানর।
বানরের দল গ্রামবাসীদের উপর হামলা করে কুকুরছানাটিকে ছিনিয়ে নেয়। তারপর কুকুরছানাটিকে হত্যা করে। ওই বালনর-দল এখন স্কুলগামী শিশুদেরও টার্গেট করেছে বলে গ্রামবাসীদের মধ্যে আরও আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। তিন মাসেরও বেশি সময় ধরে চলছে বানর-কুকুর গ্যাং-ওয়ার তিন মাসেরও বেশি সময় ধরে চলছে বানর-কুকুর গ্যাং-ওয়ার এলাকার মানুষ এই ঘটনায় প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েছে। জানানো হয়েছে বন দফতরকেও। কিন্তু প্রতিশোধের নেশায় হিংস্র হয়ে ওঠার বানর-বাহিনীকে কী করে ঠান্ডা করা যাবে, তা ভেবে পাচ্ছেন না প্রশাসন ও বনদফতর। তিন মাসেরও বেশি সময় ধরে বানরের অত্যাচারে তদন্ত বিড জেলার ওই গ্রামের বাসিন্দারা। এখন এই পরিস্থিতি থেকে রক্ষা পাওয়ার উপায় দেখছে না। এলাকা কুকুর-শূন্য হয়ে গিয়েছে একেবারে।

See also  হরতাল ও অবরোধ এই দুটির মধ্যে পার্থক্য কি ? কোনটি বেশি ভয়ংকর ও রক্তক্ষয়ী জেনে নিন