দিনাজপুর শহরের জাবেদ আবাসিক হোটেলে চলছে রমরমা দেহ ব্যবসা, দুই জোড়া কোপত-কোপতি আটক!!

দিনাজপুর শহরের জাবেদ আবাসিক হোটেলে চলছে রমরমা দেহ ব্যবসা, দুই জোড়া কোপত-কোপতি আটক!!

দিনাজপুর শহরের প্রাণকেন্দ্র বাহাদুর বাজারে অবস্থিত হোটেল জাবেদ ইন্টারন্যাশনাল (আবাসিক) এ চলছে প্রতিনিয়ত রমরমা দেহ ব্যবসা। আজ ৪ই অক্টোবর দুপুর ২টায় শহরের বাহাদুর বাজার এলাকার জাবেদ সুপার মার্কেটের ৩য় তলায় জাবেদ ইন্টারন্যাশনাল আবাসিক হোটেলে ঘন্টাব্যাপি অভিযান চালিয়ে অসামাজিক কার্যকলাপের দায়ে ২ জোড়া কোপত কোপতি, হোটেল ম্যানেজার ও বয় সহ ৬ জনকে আটক করেছে কোতয়ালী থানা পুলিশ। প্রশাসনের নজরদারী না থাকায় ও পিতামাতার অসচেতনতার কারণে ও সন্তানদের ঠিকমত খোঁজ খবর না নেওয়ায় এ রকম অহরহ ঘটনা প্রতিনিয়ত ঘটেই চলেছে। আটককৃতরা হলেন, পার্বতীপুর উপজেলার রামচন্দ্রপুর এলাকার মৃত মফেজ কাপুড়িয়ার ছেলে বাচ্চু আলী লিমন (২৭), একই উপজেলার শিমুলঝারী এলাকার আলব্রীকুস হাঁসদার মেয়ে লতা হাঁসদা (২০), জেলার কাহারোল উপজেলার উচিতপুর এলাকার মিজানুর রহমান আশিক (২৮) একই উপজেলার তানিয়া মহন্ত (১৮), হোটেল ম্যানেজার আব্দুর রহিম রাকিব (৪০) ও হোটেল বয় ফারুক হোসেন (২৮)।

এ বিষয়ে পুলিশ ইন্সপেক্টর মোঃ জিয়াউল হক জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি শহরের বাহাদুর বাজার এলাকার জাবেদ ইন্টারন্যাশনাল আবাসিক হোটেলে অসামাজিক কার্যকলাপ চলছে। এ সময় পুলিশের একটি দল আবাসিক হোটেলে অভিযান চালিয়ে ২ জোড়া কোপত কোপতি, হোটেল ম্যানেজার ও বয় সহ ৬ জনকে অসামাজিক কার্যকলাপের দায়ে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এ বিষয়ে হোটেল মালিক মোজাফফর হোসেনের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেন নি। স্থানীয় এলাকাবাসী জানান, আবাসিক হোটেলে দেহ ব্যবসা দিনাজপুরে দীর্ঘদিন যাবৎ চলে আসছে। প্রশাসনের নজরদারী না থাকায় এইসব বিষয় মানুষের সামনে আসে না।

See also  ঢাকায় দেহ ব্যবসায় বেশি বিবাহিত নারীরা!